• Wednesday, 07 December 2022
“ইমো” হ্যাক ‘ অভিযোগে নাটোরে ৭ জনকে গ্রেফতার

“ইমো” হ্যাক ‘ অভিযোগে নাটোরে ৭ জনকে গ্রেফতার

 

র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই দেশের সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সমুন্নত রাখার লক্ষ্যে সব ধরণের অপরাধীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। র‌্যাব নিয়মিত জঙ্গী, সন্ত্রাসী, সংঘবদ্ধ অপরাধী, মাদক, অস্ত্রধারী অপরাধী, ভেজাল পণ্য, ছিনতাইকারী, পর্নোগ্রাফিসহ প্রতারক ও হ্যাকারদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে আসছে। ১। এরই ধারাবাহিকতায় সিপিসি-২, নাটোর ক্যাম্প, র‌্যাব-৫, রাজশাহীর একটি অপারেশন দল অদ্য ২৪ নভেম্বর ২০২২ তারিখ ০০:৫০ ঘটিকা পর্যন্ত তথ্য ও প্রযুক্তি ও গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে প্রতারণার স্বীকার ভূক্তভোগী মোঃ মনিরুল ইসলাম (৩৮), পিতা মোঃ দবির মন্ডল, মাতা-মোছাঃ আসিয়া খাতুন, সাং-কচুয়াদহ, কামিরহাট, থানা-মিরপুর, জেলা-কুষ্টিয়া এর অভিযোগের প্রেক্ষিতে নাটোর জেলার লালপুর থানাধীন বিলমাড়িয়া বাজার এলকা হতে
কোম্পানী অধিনায়ক, অতিঃ পুলিশ সুপার, মোঃ ফরহাদ হোসেন ও কোম্পানী উপ- অধিনায়ক, সহকারী পুলিশ সুপার, মোঃ রফিকুল ইসলাম দ্বয়ের নেতৃতে অভিযান পরিচালনা করে মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট সংযোগ ব্যবহার করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে “ইমো” হ্যাক করে বিকাশের মাধ্যমে প্রতারণা পূর্বক অর্থ হাতিয়ে নেওয়ায় (ক) মোবাইল সেট-০৯ টি, (খ) সিমকার্ড-১৫ টি, (গ) ফেন্সিডিল-০২ বোতল, (ঘ) ডিভিআর সেট- ০১টি, (ঙ) প্রতারণা মূলক টাকা-১৫,৪০০/-সহ আসামী ১। মোঃ বেলাল মন্ডল (২৯), পিতা-মৃত শামসেদ মন্ডল, সাং- খানপুর, থানা-বাঘা, জেলা-রাজশাহী, ২। মোঃ মেহেদী হাসান (২৪), পিতা-মোঃ শাহাবুল ইসলাম, সাং-মোহরকয়া, ৩। মোঃ মোহন সরকার (১৯), পিতা-মোঃ মঞ্জুর রহমান, সাং-মোহরকয়া (খাঁ-পাড়া), ৪। মোঃ শিমুল আলী (১৯), পিতা- মোঃ মাজদার প্রামানিক, সাং-মনিহারপুর, ৫। মোঃ শাহ পরান সরকার (১৯), পিতা- মোঃ নূর আলম সরকার, সাং-ভাঙ্গাপাড়া, ৬। মোঃ রবি (২২), পিতা-মোঃ ইয়াসিন আলী, সাং-মোহরকয়া, ৭। মোঃ
রুবেল মন্ডল (৩২), পিতা-মোঃ রিফাজ মন্ডল, সাং-নাগসোসা, সর্ব থানা-লালপুর, জেলা- নাটোরগণ’দের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।


র‌্যাব জানান, ভূক্তভোগী মোঃ মনিরুল ইসলাম (৩৮) এর চাচাতো ভাই মোঃ ওয়াসিম একজন সৌদি প্রবাসী। গত ২৫ অক্টোবর ২০২২ তারিখ দুপুর অনুমান ১৩:২০ ঘটিকায় তার চাচাতো ভাই এর ইমো আইডি হতে ভূক্তভোগীর ইমো আইডিতে শ্রমিকের বিল দেওয়ার জন্য মেসেজ আসে এবং একটি বিকাশ নম্বর দেয়। ভূক্তভোগী মোঃ মনিরুল ইসলাম (৩৮) উক্ত মেসেজের প্রেক্ষিতে সরল বিশ্বাসে প্রেরিত বিকাশ নম্বরে প্রথম ২১,৫০০/- টাকা প্রেরণ করে। পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে তার চাচাতো ভাইয়ের ইমো আইডি হতে বেশ কিছু বিকাশ নম্বর প্রেরণ করে এবং টাকা দিতে বলে। ভূক্তভোগী মোঃ মনিরুল ইসলাম (৩৮) সরল প্রেরিত উক্ত বিকাশ নম্বর গুলোতে সর্বমোট ১,২০,৮৬০/-টাকা পাঠায়। কেননা এর আগেও মোঃ মনিরুল ইসলাম (৩৮) তার চাচাতো ভাইয়ের কথামত বিকাশে টাকা প্রেরণ করেছিল। পরবর্তীতে কিছু সময় পর মোঃ মনিরুল ইসলাম (৩৮) এর চাচাতো ভাই মনিরুলকে ফোন করে জানায় যে, তার ব্যবহৃত ইমো একাউন্টটি হ্যাক হয়েছে। তখন ভূক্তভোগী মোঃ মনিরুল ইসলাম (৩৮) বলে তুমি শ্রমিকের বিল দেওয়ার জন্য যে বিকাশ নম্বরগুলো পাঠিয়ে দিয়েছিলে সে গুলোতে আমি ইতিমধ্যে সর্বমোট ১,২০,৮৬০/-টাকা পাঠিয়ে দিয়েছি। তখন ভূক্তভোগী মোঃ মনিরুল ইসলাম (৩৮) বুঝতে পারে যে, সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্র তার চাচাত ভাইয়ের ইমো একাউন্ট হ্যাক
করে প্রেরিত বিকাশ নম্বরগুলো দিয়ে তার সাথে প্রতারণা করে বিকাশের মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে।


 ভূক্তভোগী মোঃ মনিরুল ইসলাম (৩৮) নাটোর জেলার বড়ইগ্রাম থানাধীন বনপাড়া বাইপাস মোড়ে র‌্যাবের টহল দলের নিকট ইমো হ্যাংক করে প্রতারনার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার বিষয়টি বিস্তারিত বর্ননা করে। পরবর্তীতে সিসিসি-২ নাটোর ক্যাম্প, র‌্যাব-৫, রাজশাহীর একটি আভিযানিক দল তথ্য প্রযুক্তি ও বিশেষ গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে লালপুর থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ভূক্তভোগীর চাচাতো ভাইয়ের ইমো হ্যাক করে প্রতারনার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার সেই সংঘবদ্ধ ইমো হ্যাকিং চক্রের ০৭ জন সদস্যকে গ্রেফতার করতে সক্ষম
হয়।
 গ্রেফতাকৃত ০৭ জন আসামীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, তারা পরস্পর যোগসাজসে দীর্ঘদিন যাবৎ ইলেকট্রনিক ডিভাইস ও ইন্টারনেট সংযোগ ব্যবহার করে প্রবাসীসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তের “ইমো” ব্যবহারকারীদের ইমো হ্যাক করে এবং পরবর্তীতে ভিকটিমের পরিচিত জন দের নিকট হতে প্রতারণা পূর্বক মোবাইল ফিন্যান্সিং সার্ভিস (বিকাশ) এর মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নেয়। পরবর্তীতে ভূক্তভোগী বাদী হয়ে নাটোর জেলার লালপুর থানায় গ্রেফতারকৃত আসামীগনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ২০১৮ এর ২০/২৪/৩৪/৩৫ ধারায় মামলা
রুজু করেন। এছাড়াও তল্লাশীকালে প্রাপ্ত আসামী মোঃ রবি (২২) এর নিকট হতে উদ্ধারকৃত মাদক এর জন্য র‌্যাব বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে নাটোর জেলার লালপুর থানায় একটি মাদক মামলা দায়ের করেন।

comment / reply_from